ইরানে হামলার জন্য অস্ত্র মজুত করছে ইসরায়েল

ইরানে হামলার জন্য অস্ত্র মজুত করছে ইসরায়েল

ইরানে হামলার জন্য শত শত কোটি ডলারের অস্ত্র মজুত করছে ইসরায়েল। তেল আবিবভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ওয়াইনেট নিউজের প্রতিবেদনে এমনটি বলা হয়েছে। 

ওয়াইনেট নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়, গত ২৮ নভেম্বর ইসরায়েলের সরকারি কমিটি একটি চুক্তিতে অনুমোদন দেয়, যার মাধ্যমে ২৪০ কোটি ডলার ব্যয়ে যুক্তরাষ্ট্রের লকহিড মার্টিন সিএইচ-৫৩ হেলিকপ্টার কিনতে পারবে ইসরায়লের বিমানবাহিনী। ইরানে সম্ভাব্য হামলা চালানোর জন্যই তারা এই হেলিকপ্টার ক্রয় করছে বলে ওয়াইনেটের প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে। 

ইসরায়েলের সংবাদমাধ্যম মার্কারের প্রতিবেদনে বলা হয়, ইসরায়েলের মন্ত্রিপরিষদ এক ঘণ্টার কম সময় ধরে আলোচনা করে ১০ থেকে ১৫টি হেলিকপ্টার কেনার অনুমোদন দেয়। এ ছাড়া অতিরিক্ত আরও আয়রন ডোম প্রতিরক্ষাব্যবস্থা কেনার জন্য অনুমোদন দিয়েছে ইসরায়েল সরকার।

পরমাণু চুক্তির স্থবিরতা ঠেকাতে পাঁচ মাস পর ভিয়েনায় ইরানের সঙ্গে আবার গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা শুরু হয়েছে। ওয়াইনেট নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়,  ইসরায়েল মনে করে, ২০১৫ সালের চুক্তিতে পুনরায় ফিরবে না ইরান। আর এ জন্যই হামলার কথা চিন্তা করছে ইসরায়েল সরকার।

ইরানের পরমাণু কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণে রাখতে ২০১৫ সালে ছয় বিশ্বশক্তি ও তেহরানের মধ্যে চুক্তি হয়। ২০১৮ সালে একতরফাভাবে এই চুক্তি থেকে বের হয়ে যায় যুক্তরাষ্ট্র। তেহরানের ওপর আরোপ করে কঠোর নিষেধাজ্ঞা। চলতি বছর ক্ষমতা গ্রহণের পর এই চুক্তি সচল করতে উদ্যোগ নেয় বাইডেন প্রশাসন। এ লক্ষ্যে  গত এপ্রিল থেকে পক্ষগুলোর মধ্যে কয়েক দফা আলোচনা চলছে। 

ওয়াইনেট নিউজের প্রতিবেদনে আরও জানানো হয়, সম্প্রতি ইসরায়েলি সেনাবাহিনী ইরানে সম্ভাব্য হামলা চালানোর প্রস্তুতি দ্বিগুণ করেছে। ইসরায়েলি বিমানবাহিনী ও গোয়েন্দাদের সঙ্গে নিয়ে তারা এই প্রস্তুতি নিচ্ছে।

ইসরায়েলের সশস্ত্র বাহিনীর (আইডিএফ) কর্মকর্তাদের শঙ্কা, ইরানে হামলা চালালে পালটা ব্যবস্থা নিতে পারে লেবাননের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হিজবুল্লাহ। আর এ জন্যই আয়রন ডোম প্রতিরক্ষাব্যবস্থা কেনার প্রতি জোর দিচ্ছে ইসরায়েল।

Advertisement