যুক্তরাজ্যে প্রতিদিনই ভাঙছে মৃত্যুর রেকর্ড

যুক্তরাজ্যে প্রতিদিনই ভাঙছে মৃত্যুর রেকর্ড

দিন যত যাচ্ছে, ততই বিভীষিকাময় হয়ে উঠছে করোনা। প্রাচ্য, মধ্যপ্রাচ্য তো বটেই, পশ্চিমা বিশ্বের মানুষকে কম নাজেহাল করেনি এ ভাইরাস। সম্প্রতি এর অতিসংক্রামক ধরন ওমিক্রনে মারা গেছেন যুক্তরাষ্ট্রের ব্যক্তি। এবার প্রথমবারের মতো যুক্তরাজ্যে একদিনে করোনা রোগী শনাক্তের সংখ্যা ছাড়াল এক লাখ। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন করে এক লাখ ছয় হাজার ১২২ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। স্থানীয় সময় বুধবার (২২ নভেম্বর) এ তথ্য জানায় যুক্তরাজ্য সরকার।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে করোনা মহামারি শুরুর পর থেকে এখন পর্যন্ত কখনও যুক্তরাজ্যে এক দিনে এত রোগী শনাক্ত হয়নি। এখন পর্যন্ত দেশটিতে এক কোটি ১০ লাখের বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। ভাইরাসটিতে সংক্রমিত হয়ে মৃত্যু হয়েছে এক লাখ ৪৭ হাজার ৫৭৩ জনের। খবর বিবিসির।

করোনার অতিসংক্রামক ধরন ওমিক্রন যুক্তরাজ্যব্যাপী দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে সবাইকে বুস্টার ডোজ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে সরকার। দেশটিতে ইতোমধ্যেই ৩০ লাখের বেশি মানুষ বুস্টার ডোজ নিয়েছেন।

এদিকে, ওমিক্রনের বিস্তারের মধ্যে যুক্তরাজ্যের পাশাপাশি ফ্রান্সেও বাড়ছে সংক্রমণের হার। খুব দ্রুত সংক্রমণ লাখ ছাড়াবে বলে দেশটি আশঙ্কা। ফ্রান্সের স্বাস্থ্যমন্ত্রী অলিভিয়ার ভিরান হুঁশিয়ার করেছেন, দেশটিতে এই মুহূর্তে দিনে ৭০ হাজারের মতো মানুষ করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন। এর পেছনে ওমিক্রন দায়ী থাকতে পারে বলে অনুমিত হচ্ছে। জানুয়ারির শুরুর দিকে এর আরও বিস্তার ঘটতে পারে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) ইউরোপীয় অঞ্চলের ৫৩টি দেশের মধ্যে কমপক্ষে ৩৮টি দেশে ওমিক্রন শনাক্ত হয়েছে। করোনার চলমান এই সংকট দূর করতে বিধিনিষেধ জারি করেছে জার্মানি, ফিনল্যান্ড, পর্তুগাল, নেদারল্যান্ডসসহ কয়েকটি দেশ। তবে অনেক দেশ এখনো করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে বিধিনিষেধ জারি করেনি। বিশেষজ্ঞদের ধারণা, ক্রিসমাস শেষে নিষেধাজ্ঞার পথে হাঁটবে বাকি দেশগুলো।

0 মন্তব্যসমূহ