৪ ঘণ্টার ব্যবধানে তুরাগে আরেক নারীর মরদেহ, পুলিশের ধারণা খুন

৪ ঘণ্টার ব্যবধানে তুরাগে আরেক নারীর মরদেহ, পুলিশের ধারণা খুন

রাজধানীর উত্তরায় ৪ ঘণ্টার ব্যবধানে আরও এক নারীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রাত সোয়া ১১টায় বোরকা পরিহিত অবস্থায় রাস্তায় পড়ে থাকা এ মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। মরদেহের বুকে ধারালো অস্ত্রের আঘাত থাকায় একে খুন বলে ধারণা করছে পুলিশ।

তুরাগ থানার তালতলা এলাকার মক্কা টাওয়ার সংলগ্ন গলিতে পাওয়া এ নারীর নাম সাবিনা (৩০)। সাবিনার সঙ্গে থাকা আইডি কার্ড থেকে জানা যায়, তিনি হামীম গ্রুপের গার্মেন্টসে চাকরি করতেন। এখন তাঁর অফিস থেকে ফেরার কথা থাকলেও বাড়ির কাছে তাঁর মরদেহ পাওয়া গেল। খবর পেয়ে প্রত্যাশা ব্রিজের কাছে নিজের চায়ের দোকান থেকে ছুটে এসে নিহতের ভাই বোনের মরদেহ শনাক্ত করেন। 

তুরাগ থানার এস আই মোজাম্মেল হক জানান, ছুরি বা ধারালো অস্ত্র দিয়ে সাবিনার বুকে আঘাত করা হয়েছে। মরদেহের ডান পাশে একটি ছুরি পড়ে থাকলেও তাতে রক্তের আলামত পাওয়া যায়নি। ধারণা করা হচ্ছে, অন্য কোন অস্ত্র দিয়ে তাঁকে হত্যা করা হয়েছে। 

রাত ১০টার দিকে লোকজন মরদেহটি রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখে। এখনো মরদেহটি রাস্তায় আড়াআড়ি পড়ে আছে। এরই মধ্যে ঘটনাস্থলে পুলিশ, র‍্যাবসহ অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত হয়েছেন। 

এর আগে রাত সোয়া ১১টায় তুরাগ থানার ডিউটি অফিসার এস আই জাকির হোসেন বলেন, জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ এর মাধ্যমে জানতে পেরে ঘটনাস্থল কামারপাড়া তালতলা এলাকায় টহল টিম পাঠানো হয়েছে। এক অজ্ঞাত নারীর মরদেহ পাওয়া গেছে। 

প্রসঙ্গত, তুরাগের দিয়াবাড়ি থেকে আজ সন্ধ্যা ৭টার দিকে তুরাগ থানা-পুলিশ আরেকটি অজ্ঞাত কিশোরীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। দিয়াবাড়ির ২ নম্বর মেট্রোরেল স্টেশনের পাশের ঝোপঝাড় থেকে এ মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। তাঁর মুখ ও হাত ঝলসানো ছিল। ওই

কিশোরীর বয়স আনুমানিক ২০ বছর। উদ্ধারকালে তাঁর গায়ে সাদা-কালো রঙের থ্রিপিস, লাল-হলুদ রঙের ওড়না এবং খয়েরি রঙের সালোয়ার ছিল।

Advertisement