ঢাবির ছাত্রী হলে বিবাহিত-অন্তঃসত্ত্বাদের নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার

ঢাবির ছাত্রী হলে বিবাহিত-অন্তঃসত্ত্বাদের নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলে বিবাহিত ও অন্তঃসত্ত্বা ছাত্রীরা থাকতে পারবেন। আজ বুধবার (২২ ডিসেম্বর) প্রভোস্ট স্ট্যান্ডিং কমিটির এক সভায় এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। এ তথ্য নিশ্চিত করেন বিজয় একাত্তর হলের প্রভোস্ট এবং প্রভোস্ট স্ট্যান্ডিং কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ড. আবদুল বাছির।

তিনি বলেন, আবাসিক হলগুলোতে বিবাহিত এবং অন্তঃসত্ত্বা ছাত্রীদের না থাকার যে বিধান ছিল সেটি সংশোধন করা হয়েছে। এখন থেকে বিবাহিত এবং অন্তঃসত্ত্বা ছাত্রীরা হলে থাকতে পারবেন। তবে অন্তঃসত্ত্বা ছাত্রীর ক্ষেত্রে তার শারীরিক সুস্থতার জন্য পারিবারিক পরিবেশে থাকা বাঞ্ছনীয়।

কমিটির সদস্য সচিব ও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীদের হলে বিবাহিত ও অন্তঃসত্ত্বাদের থাকার ক্ষেত্রে যে বিধি-নিষেধ ছিল, তা বাতিল করা হয়েছে। এখন থেকে বিবাহিত ছাত্রীদের হলে থাকতে আর কোনো বাধা নেই। বিশ্ববিদ্যালয় মনে করে যে, মা ও সন্তানের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিতের জন্য অন্তঃসত্ত্বা ছাত্রীদের পরিবারের কাছে থাকা ভালো।

এদিকে ছাত্রী হলের আসন বণ্টনের নিয়ম বাতিলের আন্দোলনের নেতৃত্ব দেয়া শামসুন নাহার হলের সাবেক ভিপি শেখ তাসনিম আফরোজ ইমি জানান, আমাদের চারটি দাবির মধ্যে মাত্র একটি দাবি মানা হয়েছে। এজন্য আমরা খুশি হতে পারিনি। আমাদের বাকি দাবিগুলোও গুরুত্বপূর্ণ ছিল। প্রশাসনকে সেগুলো মানার অনুরোধ রইলো।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীদের পাঁচটি হলে আসন বণ্টন সম্পর্কিত নীতিমালায় বলা আছে, ‘কোনো ছাত্রী বিবাহিত হলে অবিলম্বে কর্তৃপক্ষকে জানাবেন। অন্যথায় নিয়ম ভঙ্গের কারণে তার সিট বাতিল হবে। শুধু বিশেষ ক্ষেত্রে বিবাহিত ছাত্রীকে চলতি সেশনে হলে থেকে অধ্যয়নের সুযোগ দেওয়া হবে। অন্তঃসত্ত্বা ছাত্রী হলে থাকতে পারবেন না।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের হলে আসন বন্টনের এমন বিধান নিয়ে ছাত্রীরা প্রশ্ন তোলেন। তারা বলেন, বিয়ে করা কি অপরাধ? ছাত্রী হলে ‘বিবাহিত মেয়েরা থাকতে পারবেন না’ পুরানো এমন একটি বিধান সম্প্রতি কার্যকর হওয়ায় ছাত্রীরা এর প্রতিবাদে কর্মসূচি দিয়েছেন। বিভন্ন ছাত্র সংগঠনও তাদের সমর্থন দেয়। এরই প্রেক্ষিতে প্রভোস্ট স্ট্যান্ডিং কমিটির সভায় এই নিয়ম বাতিলের সিদ্ধান্ত নেওয়া হলো। 

0 মন্তব্যসমূহ