ভারতের সংসদে শোক প্রকাশেও ‘রাজনীতি

প্রথম সেনা সর্বাধিনায়ক বিপিন রাওয়াতের মৃত্যুতে শোকমগ্ন ভারত। আজই শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে তার। এরই মধ্যে রাওয়াতের মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ নিয়েও ‘রাজনীতি’র অভিযোগ তুলল বিরোধীরা। বৃহস্পতিবার রাজ্যসভায় বিরোধী দলগুলো অভিযোগ তোলে, তাদের শোকপ্রকাশ করতে দেয়া হচ্ছে না।  বিরোধী দলনেতা মল্লিকার্জুন খাড়গের অনুরোধ ছিল, প্রয়াত সেনানায়কের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর জন্য এক মিনিট করে সময় দেয়া হোক বিরোধী দলগুলিকে। কিন্তু সেই প্রস্তাব খারিজ করে দেন রাজ্যসভার চেয়ারম্যান। কিন্তু কেন সুযোগ দেয়া হল না বিরোধীদের? বিরোধী নেতার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করার সময় রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যান হরিবংশ বলেন, অধিবেশনের শুরুতেই তিনি যে বিবৃতি দিয়েছেন, তা কক্ষের সকলের হয়েই দিয়েছেন। তাই আলাদা করে বিরোধীদের আর শোকপ্রকাশের প্রয়োজন নেই।  পরে কক্ষের বাইরে সংবাদমাধ্যমের সামনে ক্ষোভ উগরে দেন বিরোধীরা। তৃণমূল সাংসদ সুস্মিতা দেব বলেন, ‘যেভাবে শোকপ্রকাশের বিষয়টিতে একচেটিয়া আধিপত্য রাখতে চাইছে শাসকরা, তা দুর্ভাগ্যজনক।’ মল্লিকার্জুন খাড়গে বলেন, ‘যেভাবে কক্ষে আমাদের শোকপ্রকাশও করতে দেয়া হল না, তা থেকে পরিষ্কার কী ধরনের গণতন্ত্র চলছে দেশে।’  বুধবার তামিলনাড়ুর কুন্নুরে হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় নিহত হন রাওয়াত-সহ ১৩ জন। এই পরিস্থিতিতে বৃহস্পতিবার সাসপেন্ড হওয়া বিরোধী সাংসদরা তাদের ধরনা তুলে নেন সেদিনের মতো। এরপরই মল্লিকার্জুন খাড়গে রাজনাথ সিংয়ের শোকপ্রকাশের পরে বিরোধীদেরও শোকপ্রকাশের সুযোগ দেয়ার আবেদন করেন। সেই আরজি খারিজ হতেই বিরোধীরা কক্ষ ছেড়ে চলে যায়।  উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার রাত ৮টা নাগাদ রাজধানীতে এসে পৌঁছয় সদ্যপ্রয়াত সেনা সর্বাধিনায়ক বিপিন রাওয়াত-সহ চপার দুর্ঘটনায় মৃত ১৩ জনের লাশ। শুক্রবার সকালে রাওয়াতের বাসভবন কামরাজ মার্গে প্রয়াত সেনানায়ককে শেষ শ্রদ্ধা জানান বিরোধী নেতারা। এদিন সকালে রাহুল গান্ধী, মল্লিকার্জুন খাড়গে, অরবিন্দ কেজরিওয়ালদের মতো বিরোধী নেতাদের দেখা যায় কামরাজ মার্গে। সূত্র: টাইমস নাউ।

প্রথম সেনা সর্বাধিনায়ক বিপিন রাওয়াতের মৃত্যুতে শোকমগ্ন ভারত। আজই শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে তার। এরই মধ্যে রাওয়াতের মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ নিয়েও ‘রাজনীতি’র অভিযোগ তুলল বিরোধীরা। বৃহস্পতিবার রাজ্যসভায় বিরোধী দলগুলো অভিযোগ তোলে, তাদের শোকপ্রকাশ করতে দেয়া হচ্ছে না।

বিরোধী দলনেতা মল্লিকার্জুন খাড়গের অনুরোধ ছিল, প্রয়াত সেনানায়কের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর জন্য এক মিনিট করে সময় দেয়া হোক বিরোধী দলগুলিকে। কিন্তু সেই প্রস্তাব খারিজ করে দেন রাজ্যসভার চেয়ারম্যান। কিন্তু কেন সুযোগ দেয়া হল না বিরোধীদের? বিরোধী নেতার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করার সময় রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যান হরিবংশ বলেন, অধিবেশনের শুরুতেই তিনি যে বিবৃতি দিয়েছেন, তা কক্ষের সকলের হয়েই দিয়েছেন। তাই আলাদা করে বিরোধীদের আর শোকপ্রকাশের প্রয়োজন নেই।

পরে কক্ষের বাইরে সংবাদমাধ্যমের সামনে ক্ষোভ উগরে দেন বিরোধীরা। তৃণমূল সাংসদ সুস্মিতা দেব বলেন, ‘যেভাবে শোকপ্রকাশের বিষয়টিতে একচেটিয়া আধিপত্য রাখতে চাইছে শাসকরা, তা দুর্ভাগ্যজনক।’ মল্লিকার্জুন খাড়গে বলেন, ‘যেভাবে কক্ষে আমাদের শোকপ্রকাশও করতে দেয়া হল না, তা থেকে পরিষ্কার কী ধরনের গণতন্ত্র চলছে দেশে।’

বুধবার তামিলনাড়ুর কুন্নুরে হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় নিহত হন রাওয়াত-সহ ১৩ জন। এই পরিস্থিতিতে বৃহস্পতিবার সাসপেন্ড হওয়া বিরোধী সাংসদরা তাদের ধরনা তুলে নেন সেদিনের মতো। এরপরই মল্লিকার্জুন খাড়গে রাজনাথ সিংয়ের শোকপ্রকাশের পরে বিরোধীদেরও শোকপ্রকাশের সুযোগ দেয়ার আবেদন করেন। সেই আরজি খারিজ হতেই বিরোধীরা কক্ষ ছেড়ে চলে যায়।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার রাত ৮টা নাগাদ রাজধানীতে এসে পৌঁছয় সদ্যপ্রয়াত সেনা সর্বাধিনায়ক বিপিন রাওয়াত-সহ চপার দুর্ঘটনায় মৃত ১৩ জনের লাশ। শুক্রবার সকালে রাওয়াতের বাসভবন কামরাজ মার্গে প্রয়াত সেনানায়ককে শেষ শ্রদ্ধা জানান বিরোধী নেতারা। এদিন সকালে রাহুল গান্ধী, মল্লিকার্জুন খাড়গে, অরবিন্দ কেজরিওয়ালদের মতো বিরোধী নেতাদের দেখা যায় কামরাজ মার্গে। সূত্র: টাইমস নাউ।

Advertisement