ফেনীতে ১৪৪ ধারা ভেঙে বিএনপির বিক্ষোভ

ফেনীতে ১৪৪ ধারা ভেঙে বিএনপির বিক্ষোভ

ফেনীতে ১৪৪ ধারা ভেঙে কাফনের কাপড় পরে বিক্ষোভ-সমাবেশ করেছে বিএনপি। এ সময় পুলিশের সঙ্গে তাদের ধস্তাধস্তি, ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া ও ইটপাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটেছে। বুধবার শহরের তাকিয়া রোডে এ ঘটনা ঘটে। একপর্যায়ে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রেখে পূর্ব নির্ধারিত সমাবেশ কর্মসূচি শেষ করে স্থান ত্যাগ করেন বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা।

দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিদেশে চিকিৎসার দাবিতে শহরের ওয়াপদা মাঠে সমাবেশের ডাক দেয় জেলা বিএনপি। একই সময় জেলা যুবলীগ সমাবেশের ডাক দিলে জেলা প্রশাসন ১৪৪ ধারা জারি করে।

ফেনীর জেলা প্রশাসক আবু সেলিম মাহমুদ-উল হাসান বলেন, ওয়াপদা মাঠে গত মঙ্গলবার বিএনপির সমাবেশ করার কথা ছিল। অনিবার্য কারণবশত তা স্থগিত করা হয়। গতকাল একই স্থানে সমাবেশ করতে বিএনপির আবেদনটি পুলিশ বিভাগে পাঠানো হয়। কিন্তু প্রয়োজনীয় তথ্য না পাওয়ায় বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি দেয়া হয়নি। অন্যদিকে জেলা যুবলীগ ওই স্থানে কর্মী সমাবেশের জন্য অনুমতি চায়। একই স্থানে পাল্টাপাল্টি সমাবেশ ডাকায় পরিস্থিতি স্থিতিশীল রাখতে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়।

ফেনী পৌর বিএনপির সদস্য সচিব মেসবাহ উদ্দিন বলেন, আমাদের পূর্ব নির্ধারিত জনসভা। সকাল থেকে নেতাকর্মীরা শহরের ইসলামপুর রোডে বিএনপির অস্থায়ী কার্যালয়ের সামনে জড়ো হন। কিন্তু সকাল ১০টার দিকে পুলিশ এসে ছত্রভঙ্গ করে দেয়ার চেষ্টা করে। এ সময় নেতাকর্মীদের সঙ্গে বাকবিতণ্ডা ও হাতাহাতি হয়। পুলিশের দিকে ইটপাটকেল ছোড়া হয়। এতে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়। তবে বিএনপির পক্ষ থেকে ইটপাটকেল ছোড়া হয়নি বলে মেসবাহ উদ্দিন দাবি করেন। তিনি বলেন, দুর্বৃত্তরা বেশ কিছু ইটপাটকেল ছোড়ে। পরে কেন্দ্রীয় নেতাদের হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।

এ সময় দুই পথচরী আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেলেও স্থানীয়রা তাদের নাম-পরিচয় জানাতে পারেননি। পরে পুলিশের উপস্থিতিতে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য দেন বিএনপি নেতারা।

জেলা বিএনপির আহ্বায়ক শেখ ফরিদ বাহারের সভাপতিত্বে ও জেলা বিএনপির সদস্য সচিব আলাল উদ্দিন আলালের সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- ফেনী-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য জয়নাল আবদীন (ভিপি জয়নাল), ঢাকা মহানগর (দক্ষিণ) বিএনপির সদস্য সচিব রফিকুল ইসলাম মজনু, কেন্দ্রীয় কমিটির সহদপ্তর সম্পাদক বেলাল আহম্মদ, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মশিউর রহমান বিপ্লব।

আলাল উদ্দিন আলাল বলেন, স্বৈরাচারী সরকার মানুষের সব গণতান্ত্রিক অধিকার কেড়ে নিয়েছে। আমাদের পূর্ব নির্ধারিত জনসভাস্থলে যুবলীগের কর্মসূচি দেয়া তাদের হীনমানসিকতার বহিঃপ্রকাশ হয়েছে। জনসভা করতে না পেরে বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা শহরের বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষোভ মিছিল করেছেন। এছাড়া জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে পথসভায় আসার পথে বাধাপ্রাপ্ত নেতাকর্মীরা উপজেলা শহরেও বিক্ষোভ মিছিল করেছেন।

১৪৪ ধারা ভঙ্গ সম্পর্কে তিনি বলেন, এই ১৪৪ ধারা অন্যায়। এর বিরুদ্ধে সকাল থেকে শহরের বিভিন্ন জায়গা জড়ো হয়ে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন আমাদের নেতাকর্মীরা।ফেনী থানার পরিদর্শক (অপারেশন) মাহফুজুল হক বলেন, বিএনপি নেতাকর্মীরা জড়ো হওয়ার চেষ্টা করলে পুলিশ তাদের বুঝিয়ে এলাকা থেকে সরিয়ে দিয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।

ওয়াপদা মাঠে বিএনপির সভার জন্য বানানো মঞ্চ পুলিশ সরিয়ে নেয়ার অভিযোগ অস্বীকার করে ফেনী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নিজাম উদ্দিন বলেন, এটি সত্য নয়। তিনি বলেন, শহরের ইসলামপুর রোডে বিএনপির অস্থায়ী কার্যালয়ের সামনে তারা পথসভার প্রস্তুতি নিতে চাইলে পুলিশ সরিয়ে দেয়। পরে বিএনপি নেতাকর্মীরা রামপুর থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে শহরের দাউদপুর পর্যন্ত গিয়েছে বলে জানতে পারি।

Advertisement