সিলেট বিভাগে অনির্দিষ্টকালের জন্য পরিবহন ধর্মঘট শুরু

সিলেট বিভাগে অনির্দিষ্টকালের জন্য পরিবহন ধর্মঘট শুরু

শ্রমিক ইউনিয়নের নেতাদের ওপর দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহার, ট্রাফিক পুলিশ ও হাইওয়ে পুলিশের সকল প্রকার হয়রানি বন্ধ, মেয়াদোত্তীর্ণ সেতু থেকে টোল আদায় বন্ধসহ ৫ দফা দাবি আদায়ে সিলেট বিভাগে পরিবহন ধর্মঘট চলছে।

সোমবার (২২ নভেম্বর) সকাল থেকে সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের ডাকে ধর্মঘটের কারণে দূরপাল্লার সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।

এসএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্য যাতায়াত ও চিকিৎসা সেবাসহ সকল ধরণের জরুরি সেবা এর আওতাভুক্ত না। তবে সকাল থেকে পরীক্ষার্থীসহ অন্যান্য মানুষের ভোগান্তির চিত্র দেখা যায়।

বাসস্টেশনগুলোতে গিয়ে দেখা যায়, ৫ দফা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে বাসস্টেশনে সকল ধরনের দূরপাল্লার বাস বন্ধ রেখেছেন শ্রমিকরা। বাসগুলো সারিবদ্ধ করে রেখে চালক হেলপাররা চলে গেছেন।

সুনামগঞ্জ জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মো. সেজাউল করিম বলেন, ৫ দফা দাবি আদায়ের জন্য সুনামগঞ্জে সকাল থেকে ধর্মঘট চলছে। শ্রমিকদের দাবি মানা না হলে অনির্দিষ্টকাল পর্যন্ত এই ধর্মঘট চলবে।

এর আগে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সিলেট বিভাগীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক জাকারিয়া আহমদ বলেন, গত ৯ নভেম্বর সিলেট জেলা প্রশাসক বরাবর আমরা ৫ দফা দাবি জানিয়ে স্মারকলিপি দিয়েছিলাম। সেসব দাবি মানার কোনো উদ্যোগ না নেয়ায় পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী এ ধর্মঘট ডাকা হয়েছে।

শ্রমিকদের ৫ দফা দাবিগুলো হলো, সিলেট জেলা অটোটেম্পু ও অটো রিকশাচালক শ্রমিক জোটের ত্রি-বার্ষিক নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করা এবং প্রহসনমূলক নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় তথাকথিত ঘোষিত কমিটি বাতিল করা ও মনোনয়ন ফি বাবদ আদায় করা লাখ লাখ টাকা ফেরত দেওয়াসহ সিলেটের আঞ্চলিক শ্রম দপ্তরের উপপরিচালককে প্রত্যাহার; সিলেট জেলা বাস, মিনিবাস কোচ-মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের নেতাদের ওপর কোতোয়ালি থানায় দায়ের করা মামলা প্রত্যাহার; সিলেটের ট্রাফিক ও হাইওয়ে পুলিশের হয়রানি বন্ধ; মেয়াদোত্তীর্ণ সেতুতে (শেরপুর সেতু, শেওলা সেতু, লামাকাজী সেতু, ফেঞ্চুগঞ্জ সেতু ও শাহপরান সেতু) টোল আদায় বন্ধ এবং সিলেটের চৌহাট্টাসহ নগরীর বিভিন্ন স্থানে কার, মাইক্রোবাস, লেগুনা, সিএনজিচালিত অটোরিকশাসহ ছোট গাড়ির জন্য পার্কিংয়ের ব্যবস্থা করা।

0 মন্তব্যসমূহ

-------- আমাদের সকল পোস্ট বা নিউজ বাংলাদেশের বিভিন্ন অনলাইন পত্রিকা থেকে নেয়া - প্রতিটি পোস্টের ক্রেডিট সেই পোস্টের শেষ ভাগে দেয়া আছে।