ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার মধ্যেই ১৩ দেশে ছড়িয়েছে ওমিক্রন

ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার মধ্যেই ১৩ দেশে ছড়িয়েছে ওমিক্রন

দক্ষিণ আফ্রিকার নতুন ধরনটি আরও ১২ দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। নতুন এই ধরনে শনাক্ত ব্যক্তিরা সম্প্রতি আফ্রিকাসহ বিভিন্ন দেশ ভ্রমণ করেছেন বলে জানা যায়। ফলে এই ধরনটি যে দ্রুতগতিতে ছড়িয়ে পড়ছে তা বোঝা যাচ্ছে। বিভিন্ন দেশের গবেষকরা এই নতুন ধরনটির পুরো প্রভাব বোঝার চেষ্টা করছে।

ইতিমধ্যে বিভিন্ন দেশ দক্ষিণ আফ্রিকা ও এর আশপাশের দেশগুলোতে ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। তাদের আশঙ্কা, করোনার এই ধরনটির সুরক্ষা হিসেবে বর্তমানের করোনা ভ্যাকসিন কার্যকর নাও হতে পারে এবং এতে করে ফের করোনার প্রাদুর্ভাব হওয়ার সম্ভাবনা।

দক্ষিণ আফ্রিকা ছাড়াও ওমিক্রমন সংক্রমিত ১২ দেশেগুলো হলো- বতসোয়ানা, যুক্তরাজ্য, জার্মানি, নেদারল্যান্ডস, ডেনমার্ক, বেলজিয়াম, ইসরায়েল, চেক প্রজাতন্ত্র, হংকং এসএআর, অস্ট্রেলিয়া ও কানাডা।

এদিকে দক্ষিণ আফ্রিকার জোহানেসবার্গসহ কয়েকটি অঞ্চলে গত সপ্তাহের মাঝামাঝিতে ১১০০ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়। এর মধ্যে ৯০ শতাংশই নতুন ধরনের সংক্রমণ হিসেবে চিহ্নিত হয়। বতসোয়নায় নতুন ধরনের ১৯টি সংক্রমণ চিহ্নিত হয়েছে। যুক্তরাজ্যে দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে প্রত্যাগত তিন জনের শরীরে পাওয়া গেছে এই ধরনটি।

জার্মানিতেও দুটি সংক্রমণ ধরা পড়েছে, যারা সম্প্রতি দক্ষিণ আফ্রিকা গিয়েছিলেন। এছাড়া নেদারল্যান্ডসে ১৩, ডেনমার্কে ২, বেলজিয়ামে ১, ইতালিতে ১, চেক প্রজাতন্ত্রে ১, হংকংয়ে ২, অস্ট্রেলিয়ায় ২ ও কানাডায় ২ জনের শরীরে নতুন ওই ধরনটি শনাক্ত হওয়ার খবর পাওয়া যায়।

Advertisement