টস জিতে বোলিংয়ে নিউজিল্যান্ড

টস জিতে বোলিংয়ে নিউজিল্যান্ড

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রথম সেমিফাইনাল ম্যাচে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টস জিতে আগে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কিউই দলপতি কেন উইলিয়ামসন। বুধবার (১০ নভেম্বর) দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হয়েছে ইংল্যান্ডের মুখোমুখি হয়েছে নিউজিল্যান্ড। এর আগে ষষ্ঠ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে দুই দল পরস্পরের মুখোমুখি হয়েছিল।

সে যাত্রায় ৭ উইকেটের জয় তুলে নিয়ে ব্ল্যাক ক্যাপসদের আসর থেকে বিদায় করেছিল ইংলিশরা। তাছাড়া গত ওয়ানডে বিশ্বকাপের ফাইনালেও তাদের বিপক্ষে হেরে শিরোপা হাতছাড়া করেছিল কেন উইলিয়ামসনরা। এবার তাদের হারিয়ে প্রতিশোধ নিয়ে ফাইনালে যাওয়ার পথ খুঁজছে কিউইরা। দুদল আজ জিততে মরিয়া হয়ে আছে। তবে সময় ও মাঠের পাফরম্যান্স বলে দেবে কোন দল ফাইনালে খেলবে।

এছাড়া নিউজিল্যান্ড ও ইংল্যান্ড টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত পরস্পরের মুখোমুখি হয়েছে পাঁচবার। সে পরিসংখ্যানে অবশ্য এগিয়ে ইংল্যান্ড। পাঁচ বারের দেখায় তিন বারই জয় পেয়েছে ইংলিশরা। বাকি দুই দেখায় জয় পেয়েছে নিউজিল্যান্ড। বিশ্বকাপে দুই দলের প্রথম দেখা ২০০৭ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার ডার্বানে গ্রুপ পর্বের ম্যাচে। কিউইরা সে ম্যাচে জয় পায় ৫ রানের ব্যবধানে।

পরের আসর, ২০১০ সালে ফের গ্রুপ পর্বের ম্যাচে পরস্পরের মুখোমুখি হয়। কিউইদের ৩ উইকেটের ব্যবধানে হারিয়ে সে ম্যাচে জয় তুলে নেয় ইংলিশরা। পরের আসর ২০১২ সালেও আধিপত্য ধরে রাখে ইংল্যান্ড। শ্রীলঙ্কার পাল্লেকেলেতে গ্রুপ পর্বের ম্যাচে ১৪৯ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ৭ বল হাতে রেখেই ৬ উইকেটের জয় তুলে নেয় ইংলিশরা। এরপর ২০১৪ সালে বাংলাদেশের মাটিতে গ্রুপ পর্বের ম্যাচে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বৃষ্টি আইনে ৯ রানের ব্যবধানে জয় তুলে নেয় কিউইরা।

টি-টোয়েন্টি বিশ^কাপে দুই দল গ্রুপ পর্বের বাইরে প্রথমবার সেমিফাইনালে মুখোমুখি হয় ২০১৬ সালে। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে কিউইরা নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৫৩ রান তুলে নেন। জবাবে ব্যাট করতে নেমে অনবদ্য ৭৮ রানের ইনিংসে ১৭ বল হাতে রেখেই ৭ উইকেটের বড় জয় তুলে নেয় ইংল্যান্ড। এবার তারা আবার সেমিফাইনালে মুখোমুখি হচ্ছে পরস্পরের। আগের আসরের ক্ষোভ মিটিয়ে এবার কেন উইলিয়ামসনরা চাইবেন ফাইনালে যাত্রা করতে। তাই এবার পুরো আসরে দুর্দান্ত ইংল্যান্ডও কি সহজে হার মেনে নেবে।

Advertisement