রাজধানীতে অতিরিক্ত বাসভাড়া আদায় রোধে অভিযান

রাজধানীতে অতিরিক্ত বাসভাড়া আদায় রোধে অভিযান

রাজধানীতে অতিরিক্ত বাসভাড়া আদায় প্রতিরোধে বিআরটিএ ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান চলছে। রবিবার (১৪ নভেম্বর) সকাল থেকে এ অভিযান শুরু হয়।

রাজধানীর কলাবাগান ক্লাবের সামনে বিআরটিএ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ফিরোজা পারভীনের নেতৃত্বে চলা এ ভ্রাম্যমান আদালতে এখন পর্যন্ত ১৪টি বাসের বিরুদ্ধে মামলা দেয়া হয়েছে। অনিয়ম সনাক্তের ভিত্তিতে এসব বাসকে ছয় হাজার থেকে আট হাজার টাকা পর্যন্ত জরিমানা করা হয়েছে। একটি বাসকে ডাম্পিংয়ের জন্য পাঠানো হয়েছে।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ফিরোজা পারভীন জানান, মূলত যেসব বাস যাত্রীদের কাছ থেকে বিআরটিএ নির্ধারিত ভাড়ার চেয়ে বেশি ভাড়া আদায় করছে কাদের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে জরিমানা আদায় করা হচ্ছে। এছাড়া রুট পারমিট, ডাবিং লাইসেন্স, গাড়ির ফিটনেস আছে কিনা তা খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

মোবাইল কোর্ট এর সহযোগিতার জন্য সঙ্গে থাকা ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সভাপতি খন্দকার এনায়েত উল্লাহ বলেন, আমরা চাই সড়কের অনিয়ম দূর হোক। বাসমালিকরা যেন অতিরিক্ত ভাড়া আদায় না করে সে কারণে আমরা প্রতিরোধ করছি।

সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির লোকজন রাস্তায় বাস থামিয়ে যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলেন। সংঘে ম্যাজিস্ট্রেটও থাকছেন। যাত্রীরা অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগ করলে ওই বাসে বিরুদ্ধে জরিমানা আদায় করতে দেখা যায়। বাসটি কি জ্বালানিতে চলছে তাও খতিয়ে দেখে ডিজেলচালিত ও সিএনজিচালিত লেখা স্টিকার লাগিয়ে দেয়া হচ্ছে।

সিটিং সার্ভিস, গেটলক ও ওয়েবিলের বিরুদ্ধেও মোবাইল কোর্ট ব্যবস্থা নিচ্ছে। সিটিং সার্ভিস লেখা বাসগুলো থামিয়ে স্প্রে দিয়ে সিটিং সার্ভিস লেখাটি মুছে দেয়া হচ্ছে। সিটিং সার্ভিস বাস টিকেট থাকলে তা তুলে ফেলতেও দেখা যায়। সিটিং সার্ভিস লেখা থাকায় ভিআইপি পরিবহনের বাসকে সবচেয়ে বেশি জরিমানা করা হয়েছে।

0 মন্তব্যসমূহ

-------- আমাদের সকল পোস্ট বা নিউজ বাংলাদেশের বিভিন্ন অনলাইন পত্রিকা থেকে নেয়া - প্রতিটি পোস্টের ক্রেডিট সেই পোস্টের শেষ ভাগে দেয়া আছে।