রাজশাহীতে কলেজছাত্র হত্যায় পাঁচজনের ফাঁসি

রাজশাহীতে কলেজছাত্র হত্যায় পাঁচজনের ফাঁসি

রাজশাহীতে রাজু আহমেদ নামে এক কলেজ ছাত্র খুনের ঘটনায় ৫ জনের ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) বেলা ১১টায় রাজশাহীর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক অনুপ কুমার সাহা এ রায় ঘোষণা করেন। তবে একই মামলায় ৯ জনকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়।

ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্তরা হলো- নগরীর দড়িখড়বোনা এলাকার আজিজুর রহমান ওরফে রাজন, সাজ্জাদ হোসেন ওরফে সাজু, মো. রিংকু ওরফে বয়া, জেলার দুর্গাপুর উপজেলার ব্রম্ভপুর গ্রামের ইসমাইল হোসেন ও বাগমারা উপজেলার মাদারীগঞ্জ গ্রামের মাহাবুর রশীদ ওরফে রেন্টু।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে ২০১০ সালের ১৫ মার্চ সন্ধ্যায় নগরীর নিউমার্কেট এলাকায় প্রকাশ্যে রাজু আহমেদ নামে এক যুবককে পিটিয়ে ও ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়। নিউমার্কেট এলাকায় রাজুর মোবাইল ফোনের দোকান ছিল। তিনি জেলার দুর্গাপুর উপজেলার দাউদকান্দি ডিগ্রি কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী ছিলেন। তার বাড়ি বাগমারা উপজেলার হাসনিপুর গ্রামে। তবে রাজু নগরীতে মেসে থাকতেন। তাকে হত্যার ঘটনায় পরদিন তাঁর বাবা এসার উদ্দিন বাদী হয়ে থানায় মামলা করেন। এরপর শুরু হয় মামলার আইনগত প্রক্রিয়া।

এ বিষয়ে দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী এন্তাজুল হক বাবু বলেন, আসামি মাহাবুর রশীদ ওরফে রেন্টুর সঙ্গে বাগমারার একটি জমি নিয়ে রাজুর পরিবারের বিরোধ ছিল। এর জের ধরে ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের নিয়ে মাহাবুর রশীদ রাজুকে হত্যা করেন। এ মামলায় ৫৮ জন সাক্ষী ছিলেন। আদালত ৩১ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করে রায় ঘোষণা করলেন। ফাঁসির দণ্ডাদেশের পাশাপাশি প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানাও করা হয়েছে।

অ্যাডভোকেট বাবু জানান, মামলায় মোট আসামি ছিলেন ১৪ জন। এরমধ্যে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় বেকসুর খালাস পেয়েছেন ৯ জন। তবে রায় ঘোষণার সময় আসামিরা সবাই আদালতের কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন। পরে তাদের রাজশাহী কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

0 মন্তব্যসমূহ