বিমানবন্দরে পিসিআর ল্যাব বসেনি প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশেও

বিমানবন্দরে পিসিআর ল্যাব বসেনি প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশেও

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নির্দেশ দেয়ার এক সপ্তাহ পরও বিমানবন্দরে করোনা পরীক্ষার আরটিপিসিআর ল্যাব স্থাপন করা হয়নি। আরব আমিরাতসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রবেশের জন্য বিমানবন্দরেই করোনা পরীক্ষার শর্ত রয়েছে। এ পরিপ্রেক্ষিতে গত ৬ সেপ্টেম্বর সোমবার দুপুরে মন্ত্রিসভার বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী ২/৩ দিন অথবা দ্রুততম সময়ের মধ্যে ল্যাব বসানোর নির্দেশনা দেন।

ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের পার্কিং গ্রাউন্ডে এজন্য স্থানও নির্ধারণ করা হয়েছে। এরপরও ল্যাব স্থাপন না হওয়ায় বিপাকে পড়েছেন দেশের প্রায় ২০ হাজার প্রবাসী শ্রমিক।

বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, নেপাল, শ্রীলঙ্কাসহ ১৫টি দেশ থেকে শর্তসাপেক্ষে গতকাল রবিবার থেকে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয় সংযুক্ত আরব আমিরাত। দেশটির নতুন নিয়ম অনুযায়ী, প্রয়োজনীয় অনুমোদনের জন্য অনলাইনে আবেদন করতে হবে। ভ্রমণ শুরুর আগে টিকা নেয়া এবং ভ্রমণের সর্বোচ্চ ৪৮ ঘণ্টা আগে পিসিআর ল্যাবে পরীক্ষা করে করোনার নেগেটিভ সনদ পেতে হবে।

এছাড়া যাত্রা শুরুর আগ মুহূর্তে আবারো করোনার র‌্যাপিড টেস্ট বা আরটিপিসিআর টেস্ট করাতে হবে। তবে দেশের কোনো বিমানবন্দরে আরটিপিসিআর পরীক্ষা সুবিধা না থাকায় নিষেধাজ্ঞা তুলে দেয়ার পরও এ দেশের নাগরিকদের আমিরাত ভ্রমণ সম্ভব হচ্ছে না। এতে বিশেষ করে প্রবাসী শ্রমিকদের ভোগান্তি দেখা দেয়।

অনেকের ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার উপক্রম হওয়ায় অনিশ্চয়তায় দিন কাটাচ্ছেন ২০ হাজার প্রবাসী। জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরো (বিএমইটি), প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়, বিমানবন্দর ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে দৌড়ঝাঁপ করেও মিলছে না সদুত্তর।

গত সোমবার বৈঠকের পর মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম জানান, প্রথমে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ল্যাব চালু করা হবে। তারপর চট্টগ্রাম ও সিলেট বিমানবন্দরে ল্যাব স্থাপন করা হবে। এতে আমরা ৪ ঘণ্টার মধ্যেই ফলাফল জানতে পারব। মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, বিভিন্ন দেশ থেকে নতুন করে শর্ত দেয়া হচ্ছে- ফ্লাইটের চার, ছয় বা আট ঘণ্টার মধ্যে পিসিআর টেস্ট করাতে হবে। বেশ কয়েকটি দেশ থেকেই এ শর্ত দেয়া হয়েছে।

এর জন্য সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে, বিমানবন্দরেই পিসিআর টেস্ট করানোর একটি ল্যাব বসানো হবে। মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, পিসিআর টেস্ট করানোর জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। দুই-তিন দিন কিংবা যত দ্রুত সম্ভব এটি সম্পন্ন করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এদিকে এখনো ল্যাব স্থাপন না হওয়ায় ভুক্তভোগীরা জানান, করোনাকালে ছুটিতে দেশে এসে বিপাকে পড়েছেন কয়েক হাজার প্রবাসী শ্রমিক। কোভিড-১৯ পরীক্ষা রিপোর্ট নিয়ে সৃষ্ট জটিলতায় তাদের বিদেশে ফেরা ও চাকরি নিয়ে অনিশ্চিয়তা দেখা দিয়েছে। ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার উপক্রম হয়েছে অনেকের।

কবে নাগাদ স্থাপন করা হবে বিষয়টি কেউ নিশ্চিত করতে পারছেন না। সরকারি উদ্যোগে মেশিন বসানো সময়সাপেক্ষ হওয়ায় দ্রুততম সময়ে যন্ত্রটি বসানোর কাজ শুরুর আগ্রহ প্রকাশ করে দেশের কয়েকটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান অনুমতি চেয়ে আবেদন করেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে। তবে টেন্ডার প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ইউএইয়ের শর্তপূরণ করতে পারে এমন প্রতিষ্ঠানকে এর দায়িত্ব দেয়া হবে বলে জানা গেছে।

এ প্রসঙ্গে প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী ইমরান আহমদ বলেছেন, তারা দ্রুত সময়ে ল্যাব বসানোর চেষ্টা করছেন। এজন্য গঠিত টেকনিক্যাল কমিটি কাজ করছে। তিনি বলেন, সরকারিভাবে মেশিন স্থাপন সময়সাপেক্ষ হওয়ায় বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে এ পরীক্ষা করা হবে।

জনশক্তি, কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর (বিএমইটি) মহাপরিচালক মো. শহীদুল আলম জানান, স্বাস্থ্য সচিবের নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। তারা কাজ করছে। তবে কবে নাগাদ ল্যাব স্থাপন করা যাবে, তা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না।

এ প্রসঙ্গে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমান বলেন, আটকে পড়া আরব আমিরাত প্রবাসীদের ফিরে যাওয়ার স্বার্থে শাহজালালের পার্কিং গ্রাউন্ডে সুনির্দিষ্ট স্থান আগেই প্রস্তুত করা হয়েছে। স্বাস্থ্য বিভাগ যখন চাইবে, তখনই তাদের সেটি দেয়া হবে। আমিরাত সরকারের শর্ত যারা পূরণ করতে সক্ষম হবে, আপাতত সেখানে তাদের করোনা পরীক্ষা করা হবে।

এ বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা বলেছেন, এ বিষয়ে প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে। প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রণালয় কাজটি করবে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সহায়তা করবে।

প্রসঙ্গত, সংযুক্ত আরব আমিরাত প্রবাসী যেসব বাংলাদেশি দেশে এসে আটকা পড়েছেন, তাদের ফিরতে হলে অবশ্যই আরটিপিসিআর টেস্ট করাতে হবে। এটা আরব আমিরাত সরকার গত মাসে জানিয়ে দিয়েছে। প্রায় তিন মাস ফ্লাইট নিষেধাজ্ঞার পর গত ৪ আগস্ট বাংলাদেশসহ ছয় দেশের যাত্রীদের ট্রানজিট সুবিধা চালু করে সংযুক্ত আরব আমিরাত। আর গতকাল থেকে সে দেশে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞাও তুলে নেয়া হয়।

0 মন্তব্যসমূহ

-------- আমাদের সকল পোস্ট বা নিউজ বাংলাদেশের বিভিন্ন অনলাইন পত্রিকা থেকে নেয়া - প্রতিটি পোস্টের ক্রেডিট সেই পোস্টের শেষ ভাগে দেয়া আছে।